1. nannunews7@gmail.com : admin :
February 27, 2024, 1:12 pm

দৌলতপুরে উজ্জল সর্দারের নেতৃত্বে হামলা ও গুলিবর্ষণে আটক-১০ : অস্ত্র উদ্ধার

  • প্রকাশিত সময় Thursday, June 15, 2023
  • 138 বার পড়া হয়েছে
Exif_JPEG_420

অতিরিক্ত ডিআইজির ঘটনাস্থল পরিদর্শন

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে জমির পাটক্ষেত খাওয়া ও আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে ২জন নিহত হয়েছেন এবং আহত হয়েছেন অন্তত ১০জন। নিহতরা হলেন শরিফুল মালিথা ওরফে ভেলস মলিথা (৪২) ও বজলু মালিথা (৪৫)। আহতদের উদ্ধার করে দৌলতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, ভেড়ামারা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এর মধ্যে জালাল মালিথা (৪০) ও মন্টু মালিথা (৩৫) দু’জনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। হতাহতদের বাড়ি দৌলতপুর উপজেলার মরিচা ইউনিয়নের হাটখোলাপাড়া গ্রামে। সংঘর্ষ চলাকালে চরাঞ্চলের এক সময়ের ত্রাস বাহিনী প্রধান লালচাঁদের সেকেন্ডে ইন কমান্ড উজ্জল সর্দারের নেতৃত্বে প্রতিপক্ষদের লক্ষ্য করে বেপরোয়া গুলিবর্ষণ ও হামলা চালানো হয় বলে স্থানীয়দের অভিযোগ। এদিকে হত্যাকান্ডের পর দৌলতপুর থানা পুলিশ এলাকায় অভিযান চালিয়ে ১০জনকে আটক করেছে। তাদের জিঞ্জাসাবাদ করা হচ্ছে। অভিযানে হামলার নেতৃত্বদানকারী উজ্বল সর্দারের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে একটি ওয়ান শুটারগান, একটি তরবারী ও ৬টি রামদা উদ্ধার করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, মঙ্গলবার বিকেলে উজ্জল সর্দারের ভাগ্নি ফরিদের পাটক্ষেতে যায় বজলু মালিথার পক্ষের শ্যামলের গরু। এনিয়ে উজ্জল সর্দার ও বজলু মালিথার মধ্যে গরুতে পাটক্ষেত খাওয়াকে কেন্দ্র করে বাক বিতন্ডা হয়। এরই জের ধরে বুধবার বিকেল ৫টার দিকে মরিচা ইউনিয়নের হাটখোলাপাড়া জামে মসজিদের সামনে দু’পক্ষের মধ্যে আবারও বাক বিতন্ডার এক পর্যায়ে সংঘর্ষ বাঁধে। সংঘর্ষ চলাকালে উজ্বল সর্দারের নেতৃত্বে ২০-২৫জন আগ্নেয়াস্ত্র ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে বজলু মালিথা পক্ষের লোকজনের ওপর হামলা করে। প্রায় ঘন্টাব্যাপী চলা সংঘর্ষে গুলিবর্ষণ, ইটপাটকেল নিক্ষেপ, ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও ধারাল অস্ত্র দিয়ে একে অপরকে আঘাতের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে বজলু মালিথা গ্রুপের বজলু মালিথা ও শরিফুল মালিথা ঘটনাস্থলেই নিহত হন। সংঘর্ষের ঘটনায় উভয়পক্ষের অন্তত:পক্ষে ১০জন আহত হয়। এরমধ্যে জালাল মালিথা ও মন্টু মালিথা দু’জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে। এছাড়াও আহত হাসান মালিথা, আসাদ সর্দার, সাহাজুদ্দিন সর্দার, ওয়ারিশ সর্দার, ফরিদ খামারু, সাগর সর্দার, মুজা সর্দারকে দৌলতপুরসহ বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সংঘর্ষের খবর পেয়ে দৌলতপুর থানার ওসি মজিবুর রহমানের নেতৃত্বে দৌলতপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেন এবং নিহতদের লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করেন। বর্তমানে এলাকায় উত্তেজনা ও থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি নিযন্ত্রণে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। এঘটনায় গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় হাটখোলাপাড়া গ্রামে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসেন অতিরিক্ত ডিআইজি নিজামুল হক মোল্লা। এ সময় কুষ্টিয়া পুলিশ সুপার মো. খাইরুল আলম, ভেড়ামারা সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মহসিন আল মুরাদ, দৌলতপুর থানার ওসি মজিবুর রহমান, দৌলতপুর থানার ওসি (তদন্ত) রাকিবুল হাসানসহ পুলিশের অন্যান্য কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। সংঘর্ষ ও হতাহতের ঘটনার বিষয়ে দৌলতপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মজিবুর রহমান জানান, গরুতে পাট খাওয়াকে কেন্দ্র করে স্থানীয় উজ্জল সর্দ্দার ও বজলু মালিথার মধ্যে মঙ্গলবার বাক বিতন্ডা হয়। এরই জের ধরে বুধবার বিকেলে পুনরায় তাদের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হলে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। সংঘর্ষে দু’জন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় বেশ কয়েকজন আহত হলে তারা চিকিৎসাধীন রয়েছে। এছাড়াও ঘটনার সাথে জড়িত ১০জনকে আটক করে জিঞ্জাবাদ করা হচ্ছে। উজ্জল সর্দারের বাড়ি থেকে অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন। ভেড়ামারা সার্কেলে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মহসিন আল মুরাদ জানান, উজ্জলের বাড়ি থেকে একটি অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। এর আগে উজ্জলের গ্রুপের শীর্ষ ক্যাডার নয়নকে অস্ত্রসহ গ্রেফতার করা হয়েছে। বর্তমানে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। গতকাল বাদ আছর নিহতদের দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Kushtiarkagoj
Design By Rubel Ahammed Nannu : 01711011640