1. nannunews7@gmail.com : admin :
February 27, 2024, 1:18 pm

মানসিক ভারসাম্যহীন রাকিব পুলিশের সহযোগীতায় ৫ বছর পর পিতা-মাতার কাছে ফিরে গেল

  • প্রকাশিত সময় Sunday, June 11, 2023
  • 51 বার পড়া হয়েছে

কুমারখালী প্রতিনিধি রাকিব হোসেন (১২) তার বাড়ি থেকে বের হয়ে হারিয়ে যান। পরিবারের লোকজন অনেক খুঁজাখুজি করেও তার কোনো সন্ধ্যান মিলাতে পারেনি কেউ। দীর্ঘ পাঁচ বছর পর রাকিব কে পেয়েআবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয় কুমারখালী থানায়। দীর্ঘদিন পর সন্তানদের ফিরে পেয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন রাকিবের বাবা মোস্তফা ফকির মাতামোছাঃ রহিমা বেগম রত্মা। রবিবার (১১ জুন) কুমারখালী থানা পুলিশ রাকিব কে তার মা বাবার কাছে হস্তান্তর করেন। সময় কুমারখালী থানার ওসি মোহসীন হোসাইন, এস আই সুরাইয়া বিলকিস উপস্থিত ছিলেন। রাকিব ফরিদপুর জেলার সালথা থানার জগন্নাথদী গ্রামের মোঃ মোস্তফা ফকিরের ছেলে। পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, মানসিক ভারসাম্যহীন রাকিব ওই এলাকা থেকে ২০১৮ সালের আগস্ট মাসে হারিয়ে যায় সে। পরবর্তীতে গত ( মে) কুমারখালী থানা পুলিশ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে রাকিবের ছবি সহ পোষ্ট করলে তার পরিবারের কোন সন্ধান না পাওয়ায় রাকিবকে গত ১১/০৫/২০২৩ তারিখ সমাজ সেবা অফিসের মাধ্যমে শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ পূনর্বাসন কেন্দ্র বালক, কুষ্টিয়ায় প্রেরণ করা হয়। রাকিব সেখান থেকে জুন পালিয়ে আসিলে গত শুক্রবার কুমারখালী রেল স্টেশন থেকে স্থানীয় লোকজন রাকিবকে থানাতে রেখে যায়। পরবর্তীতে বিষয়টি জিডি নোট রাখা পূর্বক সমগ্র থানা, রাকিবের পরিবারের সন্ধ্যানের জন্য বার্তা প্রেরন করা হয় এবং সেই সাথে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে রাকিবের ছবি শেয়ার করা হয়। তারিপরিপ্রেক্ষিতে বাবা মার কাছে ফিরলো রাকিব।

কুমারখালী থানার ওসি মোহসীন হোসাইন বলেন, রাকিব শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ কেন্দ্র থেকে জুন পালিয়ে আসিলে। কুমারখালী রেল স্টেশন থেকে ¯’ানীয় লোকজন রাকিবকে থানাতে রেখে যায়। পরবর্তীতে বিষয়টি জিডি নোট রাখা পূর্বক সমগ্র থানা, রাকিবের পরিবারের সন্ধ্যানের জন্য বার্তা প্রেরন করা হয় এবং সেই থাকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে রাকিবের ছবি শেয়ার করা হয়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট দেখে। রবিবার (১১ জুন) দুপুর ১টার সময় কুমারখালী থানার ফেসবুকের পোষ্ট দেখে ফরিদপুর জেলার সালথা থানা হইতে মোঃ মোড়ফা ফকির তাহার স্ত্রী মোছাঃ রতœ খাতুন থানায় আসিলে রাকিব তাহার পিতা মাতাকে দীর্ঘ বছর পর দেখা পাইয়া ছুটিয়া যাইয়া তার পিতামাতাকে জড়াইয়া ধরে। আমরা রাকিব কে তার বাবা মায়ের কাছে হস্তান্তর করেছি। রাকিবের পিতা মাতা, জানায় সে বুদ্ধি প্রতিবন্ধী, সে প্রাই ০৫/০৬ বছর পূর্বে বাড়ি হইতে কাউকে কিছু না বলিয়া চলিয়া যায়। তাকে অনেক খোঁজাখুজি করে না পেয়ে ভেবেছিলাম রাকিব আর হয়ত বেচে নেই। পরবর্তীতে কুমারখালী থানা হইতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে দেওয়া রাকিবের ছবি দেখতে পেয়ে পাগলের মতো কুমারখালী থানায়, ছুটে আসি। আমরা থানা পুলিশ ¯’ানীয়দের সহায়তায় কথা সারা জীবন মনে রাখবো। এই ঘটনায় থানা পুলিশ প্রসংসনীয় ভূমিকা পালন করেছেন বলে জানান সচেতন মহল।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Kushtiarkagoj
Design By Rubel Ahammed Nannu : 01711011640