1. nannunews7@gmail.com : admin :
May 19, 2024, 1:38 pm

দীর্ঘ ১৬ বছর শিশু-কিশোরদের চলছে সাঁতার প্রশিক্ষণ

  • প্রকাশিত সময় Saturday, June 11, 2022
  • 199 বার পড়া হয়েছে

কুষ্টিয়া পৌরসভার ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

কাগজ প্রতিবেদক ॥ কুষ্টিয়া পৌরসভা একটি ঐতিহ্যবাহী ও প্রাচীন পৌরসভা। ১৮৭৯ সালে প্রতিষ্ঠিত এ পৌরসভা এখন প্রথম শ্রেণির পৌরসভা। বহুমূখি উন্নয়নের দিক বিবেচনায় এ পৌরসভা দেশের মধ্যে মডেল হয়ে দাঁড়িয়েছে। কুষ্টিয়া পৌরসভা নাগরিক সেবাসহ বিভিন্ন উন্নয়নমূখি কাজের পাশাপাশি শিক্ষা ও সংস্কৃতির উন্নয়নে কাজ করে চলেছে। এছাড়াও দেশের ৩২৮টি পৌরসভার মধ্যে একমাত্র কুষ্টিয়া পৌরসভা শিশু-কিশোরদের সাঁতার প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেছে। পৌরসূত্রে জানাযায়, ১৯৯৮ সালে কুষ্টিয়া পৌরসভার পুরাতন শিশুপার্ক চত্বরে শিশু-কিশোরদের জন্য সুইমিং পুল তৈরী করা হয়। কুষ্টিয়া পৌর সুইমিং ক্লাব প্রতিষ্ঠা করে এ পুলে ২০০৬ সাল হতে সাঁতার প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেছে কুষ্টিয়া পৌরসভা। মাসিক একশত টাকা প্রশিক্ষণ ফিসের বিনিময়ে ৫ থেকে ১২ বছরের শিশু-কিশোররা এখানে সাঁতার প্রশিক্ষণ গ্রহণ করছে। ট্রেনার হিসেবে মোঃ অরণ্য অভি ও মোছাঃ শারমিন আক্তার সপ্তাহে ৬দিন দুপুর সাড়ে ৩টা হতে বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত (দু’শিফটে)  প্রশিক্ষণ দিচ্ছেন। সোমবার পুল পরিস্কারের জন্য থাকে সাপ্তাহিক ছুটি। এখানে প্রতিবছর প্রায় দু’শত শিশু-কিশোর প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে থাকে। ২০১৫ সাল হতে প্রশিক্ষণ গ্রহণকারীদের সার্টিফিকেট প্রদান করা হচ্ছে। বার্ষিক সাঁতার প্রতিযোগিতার মাধ্যমে এ সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়। প্রতি বছর মার্চ হতে অক্টোবর মাস পর্যন্ত চলে এ প্রশিক্ষণ কার্যক্রম। স্বেচ্ছাশ্রম হিসেবে শুরু থেকেই প্রশিক্ষণের সার্বিক তত্বাবধান করে আসছেন এক সময়ের পৌর স্টাফ এবং মেয়রের অত্যন্ত আস্তাভাজন বর্তমানে কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য, প্রকাশনা ও জনসংযোগ অফিসের সহকারী রেজিস্ট্রার, ক্রীড়া সংগঠক মোঃ রাশিদুজ্জামান খান টুটুল। এ প্রসঙ্গে পৌর মেয়র ও পৌর সুইমিং ক্লাবের সভাপতি আনোয়ার আলী বলেন, সাঁতার পানি দূর্ঘটনা থেকে জীবনকে রক্ষা করে। শরীরকে সুস্থ রাখে। বিশেষ করে ঠান্ডাজনিত রোগসহ বিভিন্ন রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। তিনি বলেন, সাঁতার শিশু-কিশোরদের বিনোদনের একটি বড় মাধ্যম। কুষ্টিয়া শহরে সাঁতার উপযোগী তেমন কোন পুকুর নেই বললেই চলে। এজন্য কুষ্টিয়া পৌরসভার পরিচালনায়, কুষ্টিয়া পৌর সুইমিং ক্লাবের তত্বাবধানে, পৌর সুইমিং পুলে ২০০৬ সাল থেকে সাঁতার প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়েছে। সেবামূলক কার্যক্রম হিসেবে কুষ্টিয়া পৌরসভা এখানে ভর্তুকি দিয়ে থাকে। তিনি বলেন, আমরা এ প্রশিক্ষণের মাধ্যমে সাঁতারু তৈরীর চেষ্টা করছি। দুঃখজনক হলেও সত্য যে, অনেক প্রতিভাবান সাঁতারু পেয়েছি কিন্তু অভিভাবকদের অনিচ্ছার কারনে আমাদের লক্ষ্যে পৌছাতে পারছিনা।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Kushtiarkagoj
Design By Rubel Ahammed Nannu : 01711011640