1. nannunews7@gmail.com : admin :
June 15, 2024, 5:44 pm

ইবির সাবেক ট্রেজারার ও অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক’র  বকেয়া পেনশন পাওনা চেক বিতরণ

  • প্রকাশিত সময় Friday, July 2, 2021
  • 130 বার পড়া হয়েছে

কাগজ প্রতিবেদক ॥ কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ^বিদ্যালয়ের বর্তমান ট্রেজারার, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ মোঃ আলমগীর হোসেন ভুঁইয়া বলেছেন, আমাদের সকলকে এক সময়ে অবসরে যেতে হবে। বিশ^বিদ্যালয়ে দীর্ঘ কর্মময় জীবন শেষে যখন একজন শিক্ষক ও কর্মকর্তা, কর্মচারী অবসরে যান তখন তিনি অপেক্ষায় থাকেন কখন তার সকল বকেয়া পাওনাদি পাবেন। সে লক্ষ্যকে সামনে রেখে তার সন্তানাদির শিক্ষাজীবন, আবসান, চিকিৎসা, ভ্রমন, গবেষণা ইত্যাদি এবং বাকি জীবনে বেঁচে থাকার স্বপ্ন বুনেন। কিন্তু বিশ^বিদ্যালয়ে এসে দিনের পর দিন যদি তার পাওনাদির জন্য ধন্যা দিতে হয় তার আক্ষেপের শেষ থাকে না। তাই ইসলামী বিশ^বিদ্যালয়ের বর্তমান ভিসি প্রফেসর ড. শেখ আব্দুস ছালামের বিশেষ নির্দেশনায় আমরা অবসরে যাওয়া সকল শিক্ষক কর্মকর্তা, কর্মচারীদের পাওনাদি পরিশোধে বদ্ধ পরিকর হয়েছি।

বুধবার দুপুরে ইবি ট্রেজারার কার্যালয়ে ইবির সাবেক ট্রেজারার, অবসরে যাওয়া বর্তমানে রবীন্দ্র মৈত্রী বিশ^বিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর শাহজান আলীর পেনশন, ছুটি নগদাদি বাবদ এককালীন প্রায় ৪৫ লক্ষ টাকা এবং অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক আ ন ম রেজাউল করিম’র  পেনশন, ছুটি নগদাদি বাবদ প্রায় ৪৫ লক্ষ টাকার চেক তাদের হাতে তুলে দেয়ার প্রাক্কালে এসব কথা বলেন। এ সময় ইবি হিসাব শাখার পরিচালক মোঃ ইদ্রিস উল্লাহ, হিসাব রক্ষক মোঃ শফিকুল ইসলাম, উপ-রেজিষ্টার ও কর্মকর্তা, কর্মচারী সমিতির নেতা মীর মুর্শেদসহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, ইতিপুর্বে অবসরে যাওয়া সাবেক ট্রেজারার অধ্যাপক মোঃ শাহজাহান আলী ও অধ্যাপক আ ন ম রেজাউল কমির সাবেক ভিসি প্রফেসর ড. হারুন উর রশিদ আসকারীর সময়ে তাদের পাওনাদির জন্য ইবি প্রশাসন ভবনে ধন্যা দিয়েও কোন ফল পাননি। নানা অজুহাত দেখিয়ে বিগত প্রশাসন তাদের পাওনাদি পরিশোধ করেননি বলে একটি সুত্র জানিয়েছে। বর্তমান প্রশাসন চেয়ারে বসার সাথে সাথে সকল অবসরে যাওয়া শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারীদের পেনশন, ছুটি নগদাদি পরিশোধের জন্য ধারাবাহিক ভাবে ফাইল প্রস্তুত করে চলেছে বলে জানা গেছে। এ ব্যাপারে ইবির বর্তমান ট্রেজারার প্রফেসর আলমগীর হোসেন ভুঁইয়া জানান, আমরা চেয়ারে বসেছি কারোর প্রতি অবহেলা, অবজ্ঞা, ঈশ^ান্বিত হওয়ার জন্য নয়। যিনি ন্যায্য পাওনাদার তার জন্য বতর্মান প্রশাসন সব সময় সজাগ। কাজ না করে কথা দিয়ে মানুষকে ভুল বোঝানোর কোন সুযোগ নেই। তার শেষ দিন দায়িত্বে থাকাকালীন সময়ে এমন ভাবে সকল শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী, সাধারণ ছাত্র-ছাত্রীদের সেবায় আত্মনিয়োগ করতে পারেন সে জন্য সকলের সহযোগীতা চেয়েছেন। ইবির সাবেক ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক মিজানুর রহমান লালন জানান, বিগত প্রশাসন একটি দুর্নীতিগ্রস্থ্য প্রশাসন ছিল। বিশ^বিদ্যালয়টিকে স্বমুলে দুর্নীতিতে ছেয়ে ফেলেছিল। বর্তমান প্রশাসন ঠিক তার উল্টো। তিনি জানান, কোন অনিয়ম, দুর্নীতিকে প্রশ্রয় দেবে না বর্তমান প্রশাসন, এটা আমার বিশ^াস। তিনি বলেন, ইবির বর্তমান ভিসি, ট্রেজারার ও প্রোভিসি তিনজনই স্ব স্ব কাজের জন্য দক্ষ, অভিজ্ঞ এবং নিরঅংকারী। তারা শুধু বিশ^বিদ্যালয়টিকে একটি আধুনিক, দুর্নীতিমুক্ত, শিক্ষাবান্ধব বিশ^বিদ্যালয় বির্নিমানে এগিয়ে চলেছে। তাদের সাথে বিশ^বিদ্যালয়ের সকল ছাত্র, শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারীরা আছে এবং থাকবে বলে আমার বিশ^াস।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Kushtiarkagoj
Design By Rubel Ahammed Nannu : 01711011640