1. nannunews7@gmail.com : admin :
February 28, 2024, 9:17 am

হরিপুরে গভীর রাতে নৌকার মাঝি ও বালু শ্রমিকের বাড়ীতে সন্ত্রাসী হামলা ভাংচুর ॥ মহিলাসহ আহত ৪

  • প্রকাশিত সময় Thursday, March 25, 2021
  • 183 বার পড়া হয়েছে

 

কাগজ প্রতিবেদক ॥ কুষ্টিয়া সদর উপজেলা ১নং হাটশ হরিপুর ইউনিয়নে গোপিনাথপুর গ্রামে গভীর রাতে নৌকার মাঝি ও বালু শ্রমিকের বাড়ীতে এক সন্ত্রাসী হামলায় মহিলাসহ কমপক্ষে ৪ জন গুরুতর আহত হয়েছে। লুট করা হয়েছে নগদ টাকা, সোনার অলংকারসহ কয়েক লক্ষ টাকার জিনিস পত্র। বুধবার দিবাগত রাতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় হামলার শিকার যুথী ও বালু শ্রমিক মনোয়ার বাদী হয়ে কুষ্টিয়া মডেল থানায় পৃথক দুটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায় যে,গত বুধবার গভীর রাতে হরিপুর এলাকার হারেজ মিয়ার ছোট ছেলে সেলিম (৩৫) মৃতুঃ জফের আলী শেখের ছেলে শহিদুল (৪৫) মহিদুলের ছেলে রঞ্জু (২৮) ও সঞ্জু (২৬) মারুফ ( ২২) মৃতুঃ হারেজ শেখের বড় ছেলে আলফাজ (৬০)সহ এক দল সন্ত্রাসী বাহিনী গণ নৌকার তেল নেয়ার জন্য নৌকার মাঝি ও তেল ব্যবসায়ী আব্বাসের বাড়ীতে ডাকতে যায়। এ সময় সে বাড়ীতে না থাকায় তার মেয়ে যুথী বাড়ী থেকে বের হয়ে তেল দিতে আসলে তারা যুথির মান হানি করার জন্য হামলা করে। এ সময় সে দৌড়ে পালালে তার আব্বাসের স্ত্রী এ ঘটনা দেখে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। এ সময় ওই হামলাকারীরা তাদের ঘরের মধ্যে প্রবেশ করে ঘরে থাকা আসবাব পত্র ভাংচুর করে এবং ঘরে থাকা নগদ ১৫ হাজার টাকা, একটি সোনার চেইন, এক জোড়া কানের দুলসহ বেশ কিছু জিনিস পত্র লুট করে নিয়ে যায়। এবং যাওয়ার সময় বাড়ীর সামনে মুদি দোকানে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ক্ষতি সাধন করে।

 

এ ব্যাপারে নৌকার মাঝি ও ব্যবসায়ী আব্বাস আলি জানান, পূৃর্বে সেলিম বাহিনী দীর্ঘদিন থেকে এলাকায় মাদক সেবন করে মেয়েদের উপর অত্যাচার, ইভটিজিং করে থাকে। এ ঘটনায় এলাকাবাসী তার এলাকা হরিপুর গ্রাম থেকে তাকে তাড়িয়ে দেয়। পরে ২০১৫ সালে বারখাদায় সেলিম ও আলফাজ গংরা সেখানে বসতবাড়ী করে বসবাস শুরু করে। সেখানেও এলাকাবাসীর সাথে নানা বাক-বিতন্ডা সৃষ্টি হলে সেখান থেকেও বিতাড়িত হয়। পরে পুনরায় হরিপুরে এসে বসবাস শুরু করেছে। এলাকাবাসী জানিয়েছে, ২০১৯ সালে আবার হরিপুর এসে সেলিম-আলফাজ গংরা পুর্বের ন্যায় এলাকায় মাদক সেবন, বিক্রি, অস্ত্র কেনাবেচা, চরমপন্থীদের সাথে যোগাযোগ রক্ষাসহ নানা অপকর্মে জড়িয়ে পড়ে। এসব বিষয়ে এলাকাবাসী কোন কিছু বললে তাদের উপর চড়াও হয় ও প্রাণনাশের হুমকি দেখায়। এতে ভয়ে কেউ মুখ খুলতে সাহস পায় না।

এ ঘটনায় কুষ্টিয়া মডেল থানায় দায়েরকৃত পৃথক দুটি অভিযোগের বিষয়ে কুষ্টিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ শওকত কবির জানান, এ বিষয়ে অভিযোগ পাওয়ার সাথে তাৎক্ষণিক ভাবে কিলো গাড়ি পাঠিয়েছি এবং দোষীদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তুমুলক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বেল তিনি জানান।

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Kushtiarkagoj
Design By Rubel Ahammed Nannu : 01711011640