1. nannunews7@gmail.com : admin :
February 28, 2024, 2:29 am

ভেঙ্গে পড়লো আমলাপাড়ায় ১৭ হাত কালী প্রতিমা, শিক্ষককে জুতোর মালা পরালো নেশাগ্রস্থ্য যুবক

  • প্রকাশিত সময় Monday, March 15, 2021
  • 158 বার পড়া হয়েছে

কাগজ প্রতিবেদক ॥ কুষ্টিয়া শহরের চর আমলাপাড়ায় প্রতি বছরের ন্যায় এবছরও শুক্রবার অনুষ্ঠিত হয়েছে ১৭হাত কালী পূজা। প্রতি বছর পূজার পরে বেশ কয়েক দিন প্রতিমা রেখে মন্দির প্রাঙ্গনে মেলা বসে। দূরদূরান্ত থেকে কালী পূজা ও মেলাকে কেন্দ্র করে হাজার হাজার দর্শনার্থীর আগমন ঘটে চর আমলাপাড়া এলাকায়। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। গতকাল হঠাৎ করেই দুপুর আনুমানিক আড়াইটার দিকে ক্ষতিগ্রস্ত প্রতিমাটি ভেঙে পড়ে। ভেঙ্গে পড়ার সঙ্গে সঙ্গে প্রতিমাটি দেখতে উৎসুক জনতার ভিড় জমে। সেই সাথে কিছু উত্তেজিত নেশাগ্রস্ত যুবক বিষয়টিকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য উঠেপড়ে লাগে। চর আমলাপাড়া পূজা কমিটির সভাপতি বালক বিদ্যালয়ের সাবেক সিনিয়র শিক্ষক (অবসরপ্রাপ্ত) ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে উত্তেজিত উৎশৃংখল যুবকদের ঠান্ডা করার চেষ্টা করে। এরই এক ফাঁকে নিতুর ছেলে মানব (২০) সহ অজ্ঞাতনামা আরও বেশ কয়েকজন উশৃংখল যুবক আগে থেকে তৈরি করা জুতার মালা পিছন থেকে গিয়ে স্যারকে পরিয়ে দেয়। এতে করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেলে স্থানীয় গণ্যমান্যদের উপস্থিতিতে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয় পুলিশ। পরবর্তীতে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে উত্তেজিত উশৃংখল যুবকদের ঠান্ডা করেন বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ কুষ্টিয়া জেলা শাখার সভাপতি অনুপ কুমার নন্দী। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিমা শিল্পী শ্যাম কুমার বিশ্বাসের বাড়িঘর ভাঙচুর করে নিমাই, সাধু, বিপুল, মানবসহ অজ্ঞাতনামা ২০/২৫ জনের নেশাগ্রস্থ্য যুবক। প্রতিমা শিল্পী শ্যাম কুমার বিশ্বাসের সাথে কথা হলে তিনি জানান, ৪০ বছর ধরে এই মন্দিরের প্রতিমা তৈরিতে তিনি কাজ করে যাচ্ছেন। প্রতিবার প্রতিমা নির্মাণে যে নিয়মগুলো অনুসরণ করা হয় এবারও সেই একই নিয়ম অনুসরণ করে প্রতিমা তৈরি করা হয়েছে। পূজার পরদিন সারাদেশের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া কালবৈশাখীর ঝড়ে প্রতিমা ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এরপরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় দড়ি দিয়ে বেধে কোনরকম প্রতিমাটি ঠেকা দিয়ে রাখা হয়েছিল। হঠাৎ আজকে কে বা কাহারা প্রতিমার ঠেকা দেওয়া দড়ির অংশ কেটে ফেলায় প্রতিমাটি পড়ে গেছে। প্রতিমা শিল্পী শ্যামের ছোট ভাইয়ের বউ জানান, হঠাৎ করে ২০ থেকে ২৫ জনের একটি সন্ত্রাসী দল তাদের বাড়িতে হামলা চালায়। বড় বড় ইটের আদলা দিয়ে তাদের বাড়ির চালে আঘাত করা হয় এবং মূল ফটকের তালা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ সহ বাড়ির ভিতরে ব্যাপক ক্ষতিসাধন করা হয়। তিনি আরো জানান, তিনি নিজেও হাটের রোগী। অতর্কিত হামলায় তিনি এখন অসুস্থ বোধ করছেন। তাছাড়া তাদের বাড়ির প্রত্যেকের ভেতরে ভয় কাজ করছে। প্রশাসনের একজন প্রতিনিধি তাদের বাড়ি এসেছিল তবে এখন পর্যন্ত কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেন নি। বিষয়টি নিয়ে অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে, তিনি শারীরিকভাবে খুবই অসুস্থ থাকায় তার সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি। তবে শিক্ষকের সাথে ঘটে যাওয়া বিষয়টি নিয়ে এলাকাবাসী জানাই, শিক্ষকরা জাতির বিবেক। শিক্ষক খুবই নিরীহ একজন মানুষ। শিক্ষকের এই অপমানের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন এলাকাবাসী।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Kushtiarkagoj
Design By Rubel Ahammed Nannu : 01711011640