1. nannunews7@gmail.com : admin :
July 15, 2024, 8:31 am
শিরোনাম :
কোটার সমাধান আদালতেই : প্রধানমন্ত্রী কুষ্টিয়ায় মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচারবিরোধী আন্তজার্তিক দিবস উদযাপন সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় মাদক প্রতিরোধ করা সম্ভব : এডিসি শারমিন আখতার সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় জেলার আইনশৃংলা নিয়ণÍ্রণ করা সম্ভব কুষ্টিয়ায় জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভায় পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আলমগীর হোসেন থানায় অভিযোগ দায়ের চরথানাপাড়ায় বসতবাড়ীতে হামলা গৃহবধুসহ আহত ২ কুষ্টযি়ায় জাতীয় র্পাটরি প্রসেডিন্টে ও সাবকে রাষ্ট্রপতি এরশাদরে ৫ম মৃত্যু র্বাষকিী পালতি দৌলতপুরে আবেদের ঘাটে দিনে-দুপুরে ২ রাউন্ড গুলি কুষ্টিয়ায় কোটা বৈষম্য নিরসনে দাবিতে শিক্ষার্থীদের পদযাত্রা এবং স্মারকলিপি প্রদান চুয়াডাঙ্গায় প্রণোদনার প্রভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে রোপা আউশ ধানের চাষ ভেড়ামারায় ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক পিএলসি এর ১০০২ তম শাখার শুভ-উদ্বোধন রেল কর্তৃপক্ষের নিদ্রাভিনয়ে কুমারখালীতে জলাশয় ভরাটের গতি বেড়েছে, তৈরী হচ্ছে টিনসেড ঘর

দৌলতপুরে ডিশ ব্যবসায়ীকে দফায় দফায় হয়রানির অভিযোগ, প্রতিকার চেয়ে সংবাদ সম্মেলন

  • প্রকাশিত সময় Wednesday, February 24, 2021
  • 406 বার পড়া হয়েছে

 

কাগজ প্রতিবেদক ॥কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে এক ডিশ ব্যবসায়ীকে দফায় দফায় হয়রানীর অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে। এর প্রতিকার চেয়ে গতকাল বুধবার দুপুরে উপজেলার রামকৃষ্ণ পুর ইউনিয়নের ভাগজোত এলাকায় সংবাদ সম্মেলন করেছে ভুক্তভোগী মিন্নাত আলী। তিনি ঐ ইউনিয়নের লাইসেন্সপ্রাপ্ত বাংলালিংক ডিস ক্যাবল নেটওয়ার্কের স্বত্ত্বাধিকারী। এ সময় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সিরাজ মন্ডলসহ স্থানীয়রা উপস্থিত ছিলেন। মিন্নাত আলী লিখিত বক্তব্যে বলেন, আমি ক্যাবল টেলিভিশন নেটওয়ার্ক পরিচালনা আইন-২০০৬ এর শর্ত মোতাবেক রামকৃষ্ণ পুর ইউনিয়ন এলাকায় ডিস নেটওয়ার্ক পরিচালনা করে আসছি। এরমধ্যে প্রতিপক্ষরা কিছু অসাধু ডিস নেটওয়ার্ক ব্যবসায়ীদের সাথে হাত করে আমার বিরুদ্ধে বাংলাদেশ টেলিভিশনের মহাপরিচালক বরাবর অভিযোগ করেন। পূর্বের মালিকের ডিস লাইন কর্তন করে ডিস ব্যবসা পরিচালনা এবং সিডি চ্যানেলে অশ্লীল ছবি প্রদর্শনের অভিযোগের ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরেজমিন তদন্ত করেন। সে সময় তদন্ত প্রতিবেদনে কিছু অসংগতি থাকলেও বিটিভি আমার লাইসেন্স সাময়িকভাবে স্থগিত করাই নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আমার কেন্ট্রোল রুম সিল গালা করে দেই। এ ঘটনার পর আমি উচ্চ আদালতে রিট পিটিশন দায়ের করি। উচ্চ আদালত আমার পক্ষে রায় দিলে আমি পুনরায় ক্যাবল অপারেটর কার্যক্রম শুরু করি।

মিন্নাত আলী অভিযোগ করে বলেন, এর পরেও প্রতিপক্ষরা আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। আমার বিরুদ্ধে পূর্বের মালিকের ডিস লাইন কর্তন করে ডিস ব্যবসা পরিচালনা ও সিডি চ্যানেলে অম্লীল ছবি প্রদর্শনের অভিযোগ বানোয়াট ও ভিত্তিহীন। এ ধনের কর্মকান্ডের সাথে আমি কখনো জড়িত ছিলাম না। এমনকি তদন্ত কমিটিও  এ অভিযোগের সত্যতা পাইনি। বিভিন্নভাবে প্রশাসন দিয়ে তারা আমাকে হয়রানী করছে। ইতিমধ্যে বিষয়টি নিস্পত্তির জন্য উচ্চ আদালতের নির্দেশে তদন্ত কমিটি সরেজমিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তারপরেও  গত মাসে প্রতিপক্ষের চাপে প্রশাসন আমার ব্যবসাস্থলে অভিযান চালায়। সে সময় ব্যবসাস্থলে কেউ না থাকলেও প্রশাসনের সদস্যরা তালা ভেঙে ঘরের ভিতরে প্রবেশ করে ব্যবসা সংক্রান্ত জিনিসপত্রের ক্ষয়ক্ষতি করে। এ ঘটনায় আমি ক্ষতিপূরণ দাবি করে অভিযোগ দায়ের করেছি। তিনি আরো বলেন, ডিশ ব্যবসায় বিপুল পরিমান অর্থ বিনিয়োগ করা হয়েছে। প্রতিপক্ষদের চাপে স্থানীয় প্রশাসন আমাকে দফায় দফায় হয়রানী করছে। এতে আমি আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছি। আমি এর প্রতিকার চায়  বাংলাদেশ টেলিভিশন(বিটিভি)’র আন্ত ঃ লাইসেন্স ম্যানেজার মাশুক আহমেদ মুঠোফোনে বলেন, আমি শুনেছি স্থানীয় প্রশাসন বাংলালিংক ডিস ক্যাবল নেটওয়ার্কেও ব্যবসাস্থলে অভিযান চালিয়েছে। তাছাড়া স্থানীয় প্রশাসনকে অভিযান পরিচালনার কোন দায়িত্বও দেয়া হয়নি।  মোট কথা এখানে  প্রশাসনের হস্তক্ষেপের কোন সুযোগ নেই। তারা এ অভিযান পরিচালনা করতে পারে না। উচ্চ আদালতে রিট পিটিশনের আবেদনের ভিত্তিতে আদালত এক মাসের ভেতরে বিষয়টি নিস্পত্তির নির্দেশ দিয়েছেন। এর প্রেক্ষিতে তদন্ত টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। তদন্ত প্রতিবেদনও হাতে পেয়েছি। শুধু সময়ের অপেক্ষা।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Kushtiarkagoj
Design By Rubel Ahammed Nannu : 01711011640