1. nannunews7@gmail.com : admin :
February 28, 2024, 2:40 am

কুষ্টিয় প্রেসক্লাবের আয়োজনে বিদায়ী সংবর্ধনা ॥ দায়িত্ব পালনকালে সাংবাদিকরা আমাকে সব থেকে বেশি সহযোগিতা করেছে ঃ জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন ॥ জেলা প্রশাসক নয়, আসলাম হোসেন ছিলেন আমার  বড় ভাইঃ পুলিশ সুপার তানভীর আরাফাত

  • প্রকাশিত সময় Saturday, February 6, 2021
  • 239 বার পড়া হয়েছে

 

কাগজ প্রতিবেদক ॥ কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের আয়োজনে বিদায়ী জেলা প্রশাসক মোঃ আসলাম হোসেনকে জনমকালো সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। গতকাল শনিবার দুপুরে শহরের রোজ হলিডে পার্ক এন্ড রিসোর্ট সেন্টারে এ উপলক্ষে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি গাজী মাহবুব রহমান। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক আনিসুজ্জামান ডাবুল। সমকাল ও ডিবিসি নিউজ প্রতিনিধি সাজ্জাদ রানা এবং প্রথম আলো প্রতিনিধি তৌহিদী হাসানের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বিদায়ী জেলা প্রশাসক মোঃ আসলাম হোসেন। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার এস এম তানভীর আরাফাত, স্থাণীয় সরকার শাখার উপ-পরিচালক মৃণাল কান্তি দে, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) লুৎফুন্নাহার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোঃ ওবাইদুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান ও ডিসি পতœী জাকিয়া সুলতানা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আতিকুর রহমান আতিক ও সদর উপজেলা নিবার্হী অফিসার জুবায়ের হোসেন চৌধুরী, রোটারিয়ান প্রকৌশলী নজরুল ইসলাম, কাউন্সিলর শাহিন উদ্দিন, কমিউনিটি পুলিশিং ফোরাম কমিটির নেতা ও ঠিকাদার মানজিয়ার রহমান চঞ্চল, যুবলীগ নেতা নুরুল ইসলাম সুরুজ, জনকন্ঠের দৌলতপুর প্রতিনিধি সাইদুল ইসলাম। সাংবাদিকদের মধ্যে থেকে বক্তব্য রাখেন সিনিয়র সাংবাদিক সংবাদের জেলা প্রতিনিধি মিজানুর রহমান লাকী, খাদেমূল ইসলাম, কুষ্টিয়া কাগজের সম্পাদক,  এস এ টিভি, ভোরের কাগজ ও বাসস প্রতিনিধি নুর আলম দুলাল, কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের যুগ্ম সম্পাদকদ্বয় নরুন্নবী বাবু এবং শরীফ বিশ্বাস। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি লুৎফর রহমান কুমার, কোষাধক্ষ্য এ এম জুবায়েদ রিপন, দপ্তর সম্পাদক এম লিটন উজ জামান, ক্রীড়া সম্পাদক আফম নরুল কাদের, নির্বাহী সদস্য  এম এ জিহাদ, মোকাদ্দেস হোসেন সেলিম, আক্তার হোসেন ফিরোজ, নিজাম উদ্দিন, ডালিয়া পারভীন শিউলি, দেবাষীদ দত্ত ও সুজন কুমার কর্মকার।  এছাড়াও দেশভুমি পত্রিকার সম্পাদক আলী আহসান পান্না, মিরপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি মোহাম্মদ আলী জোয়ার্দ্দার, বর্তমান সভাপতি কাঞ্চন কুমার হালদার, দৌলতপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ও এটিএন নিউজ প্রতিনিধি শরিফুল ইসলাম, একাত্তর টিভি প্রতিনিধি শাহিন আলী, আরটিভি প্রতিনিধি ও ইউনাইটেড প্রেসক্লাবের সভাপতি শেখ হাসান বেলাল, সময়ের দিগন্তের সম্পাদক ও ইউনাইটেড প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক নাহিদ হাসান তিতাস, মিরপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি বাবলু রঞ্জন বিশ্বাস, আমলা প্রেসক্লাবের  সভাপতি হাবিবুর রহমান, একুশে টিভি ও বাংলাদেশ প্রতিদিনের প্রতিনিধি জহুরুল ইসলাম, সত্য খবর সম্পাদক ও এশিয়ান টিভি প্রতিনিধি হাসিবুর রহমান রিজু, সাপ্তাহিক কুষ্টিয়ার দিগন্তের সম্পাদক খালিদ হাসান সিপাহী, সাপ্তাহিক রবি বার্তার সম্পাদক গোলাম মওলা, বজ্রপাতের নির্বাহী সম্পাদক শাহেদ হাসান, টিভি জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি বাংলাভিশন প্রতিনিধি হাসান আলী, বৈশাখী টিভি প্রতিনিধি রবিউল ইসলাম দোলন, টিভি জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশনের সাধারন সম্পাদক সময় টিভি প্রতিনিধি এস এম রাশেদ, বিটিভি প্রতিনিধি তরিকুল ইসলাম, এনটিভি প্রতিনিধি শ্যামলী খন্দকার, খবরের জেলা প্রতিনিধি রাশিদুজ্জামান খান টুটুল, আলোকিত বাংলাদেশ প্রতিনিধি আরিফ মেহমুদ, মানবজমিন প্রতিনিধি দেলোয়ার রহমান মানিক, প্রতিদিনের সংবাদ প্রতিনিধি রবিউল আলম ইভান, আমাদের অর্থনীতি প্রতিনিধি আব্দুম মুনিব, দেশের বানীর ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক সোহেল রানা, জাগরন প্রতিনিধি আব্দুল কুদ্দুস, টেলিভিশন ক্যামেরাম্যান এসোসিয়েশনের সভাপতি আশিফুজ্জামান সারফু ও সাধারন সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব, কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের সাধারন সদস্য গোলাম মহসিন, সাজ্জাদ রানা, আক্রামুজ্জামান আরিফ, মফিজুর রহমান বাবু, হায়দার আলী, ফারুক হোসেন, কাজী তুহিন, রিক্তা চৌধুরী, আবু মনি সাফায়েন, জান্নাতুল ফেরদৌস, নাজমূল হোসেন, নারগিস আরা লাইজু ও সাংবাদিক রুহুল আমিন বাবুসহ আরো অনেকেই উপস্থিত ছিলেন। বিদায়ী জেলা প্রশাসক মোঃ আসলাম হোসেন তার বক্তৃতায় বলেন,‘ কুষ্টিয়া ও কুষ্টিয়ার মানুষকে আমি কখনো ভুলতে পারবো না। এ জেলার মানুষ সহজ সরল। আমি দায়িত্ব পালনকালে জেলার উন্নয়নে কাজ করার চেষ্টা করেছি, ভুলত্র“টি হতে পারে। সবাই এ জন্য আমাকে ক্ষমা করে দিবেন।’ প্রধান অতিথি বলেন, করোনাকালে আমি চেষ্টা করেছি মানুষকে খাদ্য সহয়তা দেয়ার পাশাপাশি চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করার। আমি সবার সাথে পরামর্শ করে কাজ করেছি। বিশেষ করে এ সময় সাংবাদিকেরা আমাকে সব থেকে বেশি সহযোগিতা করেছে। তাদের সহযোগিতা কখনো ভুলতে পারব না। আমি সব সেক্টরের উন্নয়নে কাজ করেছি। সাংস্কৃতিক রাজধানী হিসেবে জেলার উন্নয়নে নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করেছি। আমার কোন ছোট ভাই নেই, এসপি তানভীর আরাফাত ছিল আমার ছোট ভাই। সে আমাকে সব সময় সহযোগিতা করেছি। তাকেও আজীবন মনে রাখবো। সবাই মিলে কাজ করলে উন্নয়ন তরান্বিত হয়। তাই যেখানেই থাকি সকলকে মনে রাখবো। আমি নিজে কোন সময় ভেদাভেদ দেখতে চাই না। তাই সকলকে এক নজরে দেখেছি। জেলা প্রশাসক বলেন, ‘অনেক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে গিয়েছি। তবে কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের আয়োজন ছিল চমৎকার ও আন্তারিক। এত বড় আয়োজন দেখিনি। সত্যেই খুব সুন্দর হয়েছে। আমি এ আয়োজনকে ভুলবো না।’ পুলিশ সুপার এসএম তানভীর আরাফাত, জেলা প্রশাসকের কর্মজীবনের নানা দিক আলোকপাত করে বক্তব্য রাখেন। তিনি বলেন, অনেক জেলায় না কি ডিসি ও এসপির মধ্যে সম্পর্ক ভালো থাকে না। আমি দায়িত্ব নেয়ার পর ডিসিকে বলেছিলম আপনি আমার বড় ভাই ও আমি আপনার ছোট ভাই হয়ে থাকতে হয়। তার সময়ে আন্তরিক ভাবে কাজ করেছি। কখেনো ভুল বোঝাবুঝি হয়নি। তিনি ছিলেন একজন চৌকস কর্মকর্তা ও মানবিক গুনাবলির অধিকারি। হাসি মুখে সব কিছু সামাল দিতেন। কখনো হতাশ হতেন না। করোনা কালে তিনি বিচক্ষনতার সাথে সামাল দিয়েছেন। জেলার উন্নয়নে তিনি সব কিছু করেছেন। মানুষের জন্য তিনি করেছেন। কুষ্টিয়াবাসী তাকে মনে রাখবে অনেক দিন।’ ডিসি পতœী জাকিয়া সুলতানা বলেন,‘ সাংবাদিক ভাইয়েরা ঝড় বৃষ্টি মাথায় নিয়ে কাজ করেন। তাদের কারনেই আমরা সকল সংবাদ জানতে পারি। এ জন্য তাদেরকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। এমন আয়োজন দেখে ভালো লাগছে। বদলি হলেও ঢাকায় গেলে আপনারা বাসায় যাবেন। সবাইকে দাওয়াত দেন তিনি।’ স্থাণীয় সরকার শাখার উপ-পরিচালক মৃনাল কান্তি দে বলেন, স্যারের সাথে সাংবাদিকদের চমৎকার সম্পর্ক বজায় ছিল দায়িত্ব পালনকালে। এক হয়ে সবাই কাজ করেছে। জেলার উন্নয়নকে স্যার  অনেক মহৎ কাজ করেছে। সব সেক্টরের উন্নয়ন করায় স্যারের প্রচেষ্টা ছিল। সফল হয়েছে বলে আমরা মনে করি।’ প্রেসক্লাব সম্পাদক আনিসুজ্জামান ডাবলু বলেন,‘ জেলা প্রশাসক মহোদয় একজন ভালো মনের মানুষ ছিলেন। তিনি সব সময় সহযোগিতা করেছেন। কখনো তাকে ভোলা যাবে না। সাংবাদিকদের বিপদে-আপদে তিনি সব সময় পাশে থেকে সহযোগিতা করেছেন। তিনি একজন ভাল বন্ধু ছিলেন। তার মত ভালো বন্ধূ পাওয়া দুস্কর।’ সভাপতি গাজী মাহবুব রহমান বলেন, জেলা প্রশাসক একজন চমৎকার মানুষ। জেলা ও জেলার মানুষের জীবন মান উন্নয়নে কাজ করেছেন। তার সাফল্য কামনা করছি। তিনি যেন আজীবন দেশের জন্য কাজ করতে পারেন।’ এ সময় অতিথিদের ফুল ও ক্রেস্ট দিয়ে সম্মাননা জানানো হয় ক্লাবের পক্ষ থেকে।  ব্যক্তিগত উপহার দেন দৈনিক যুগান্তরের প্রতিনিধি এ এম জুবায়েদ রিপন ও দপ্তর সম্পাদক এম লিটন উজ জামান।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Kushtiarkagoj
Design By Rubel Ahammed Nannu : 01711011640