1. nannunews7@gmail.com : admin :
July 12, 2024, 2:23 pm
শিরোনাম :
ঢাকায় ছয় ঘণ্টায় ১৩০ মিলিমিটার বৃষ্টি সড়ক ডুবে বিকল যানবাহন, চরম ভোগান্তিতে নগরবাসী চালের দাম আরও বাড়লো সবজি আলু পেঁয়াজের বাজার অস্থির ন্যাটোর অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে যা বলল ইরান অরুণাচলে বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণের তোড়জোড় ভারতের, চীনের কড়া প্রতিক্রিয়া ফ্রান্সের বিখ্যাত ক্যাথেড্রালে আগুন ২০০০ বর্গফুটের বাড়ি কিনেছেন কৃডু ‘আলিবাগে বিনিয়োগের সেরা সময়’ গায়ে হলুদে বাঙালির হাতে ট্রেন্ডি সাজে রাধিকা কোপা আমেরিকার ফাইনালের মঞ্চ মাতাবেন শাকিরা খোকসায় উপজেলা ছাত্র কল্যাণ পরিষদ মেধাবী শিক্ষার্থী মারিয়াকে সংবর্ধনা প্রদান পৌরসভার নির্যাতনের প্রতিবাদে  কুমারখালীর যদুবয়রা ইউনিয়নের  ৩’শ ভ্যান চালককে ফ্রি লাইসেন্স প্রদান

দৌলতপুরে শিক্ষিকার নির্দেশে স্যান্ডেল পাড়তে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ছাত্রের মৃত্যু

  • প্রকাশিত সময় Tuesday, July 9, 2024
  • 22 বার পড়া হয়েছে

দৌলতপুর প্রতিনিধি: কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার ফিলিপনগর ইউনিয়নের নাসির উদ্দীন বিশ্বাস পোয়ালবাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের টিনের চালায় উঠে স্যান্ডেল পাড়তে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে তৃতীয় শ্রেণীর এক ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে।
মঙ্গলবার (০৯ জুলাই) সকাল ১০ ঘটিকার সময় স্কুল বিল্ডিংয়ের টিনের চালায় জিসান(১০) কে স্যান্ডেল পাড়তে তুলে দেন প্রধান শিক্ষক মদিনা খাতুন, এসময় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ছাত্রটির মৃত্যু হয়। প্রত্যক্ষদর্শী শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী নাসির উদ্দিন, আতিয়ার রহমান সহ অনেকে বলেন , আমরা সহ জিসান বিদ্যালয়ে আসি, তখন প্রধান শিক্ষক মদিনা খাতুন জিসানকে ডেকে স্কুলের টিনের চালায় উঠিয়ে দেয়। এমন সময় জিসান টিনের চালায় আটকিয়ে হাত-পা ছুড়তে থাকে এসময় ম্যাডামকে ঘটনাটি বললে তিনি তখন বলেন ও এমনিতেই এমন করছে কোনো সমস্যা নাই। পরে আমরা জিসানের পরিবারের সদস্যদের ডেকে এনে বিদ্যুৎতের লাইন বন্ধ করে জিসানকে টিনের চালা থেকে নামিয়ে আনি। শিক্ষার্থীর মা রিনা খাতুন বলেন, আমার ছেলেকে ডেকে টিনের চালে তুলে দিয়ে হত্যা করেছে প্রধান শিক্ষক মদিনা খাতুন আমি তার বিচার চাই। নাম প্রকাশে অনি”ছুক মৃত ছাত্রটির আত্মীয় ওসি দৌলতপুরের ওপর খোব করে বলেন, প্রধান শিক্ষিকাকে তিনি কিছু না বলে উল্টো আমাদের ধমক দি”েছন। আমরা অসহায় তাই কি বিচার পাবো না! বিষয়টি নিয়ে প্রধান শিক্ষিকার সাথে কথা হলে, তিনি অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন আমি ক্লাসে ছিলাম আমার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ মিথ্যা। এদিকে উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার রাকিবুল ইসলাম বলেন তদন্ত করে শিক্ষকের দোষ পাওয়া গেলে বিধি অনুযায়ী ব্যব¯’া নেওয়া হবে। কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. আব্দুল্লা আল জুবায়ের বলেন, সকাল ১০:৪০ মিনিটে জিসান নামের ছেলেটিকে হাসপাতালে আনলে বিপি ও পালস পরীক্ষা করে মৃত ঘোষণা করা হয়। তার শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন ছিল না।
এ ব্যপারে দৌলতপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান বলেন, একজন স্কুল ছাত্রের মরাদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তদন্ত করে ব্যব¯’া নেওয়া হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Kushtiarkagoj
Design By Rubel Ahammed Nannu : 01711011640