1. nannunews7@gmail.com : admin :
February 21, 2024, 1:37 am
শিরোনাম :
কুষ্টিয়ায় একুশের প্রথম প্রহরে কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে জেলা প্রশাসনসহ সর্বস্তরের মানুষের ফুলেল শুভেচ্ছা আলমডাঙ্গায় যাত্রীবাহী বাস ও মোটর বাইকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত-১ কুৃষ্টিয়ার সাংবাদিক নির্যাতনের প্রতিবাদে মিরপুরে মানববন্ধন এক বছরেও ইউপি নির্বাচনে ভোটের ডিউটির টাকা পাননি আনসার সদস্যরা  দৌলতপুরে পথ নির্দেশক স্থাপন কার্যক্রমের উদ্বোধন আন্তজার্তিক মাতৃভাষা দিবসে কুমারখালী পাবলিক লাইব্রেরীর আয়োজনে একুশের কবিতা পাঠের আসর মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস আজ ফুল বাগানের নতুন রাণী ‘নন্দিনী’ চাষ পদ্ধতি হংকংয়ে না খেলার বিষয়ে মেসির বিবৃতি একুশে পদক পেলেন ২১ জন

প্রয়াত পিতার স্মরণে জয় নেহালের উদ্যোগে কুষ্টিয়ার বিভিন্ন জায়গায় সুপেয় পানির চাহিদা পুরণে গভীর নলকুপ স্থাপন অব্যাহত

  • প্রকাশিত সময় Sunday, May 28, 2023
  • 250 বার পড়া হয়েছে

কাগজ প্রতিবেদক ॥ প্রয়াত পিতার ইন্তেকালের সময়ে ৭২ ঘন্টা মুখে কোন খাবার খাননি। শেষ সময়ে তিনি সন্তানদের হাতে একটু পানি পান করেছিলেন। প্রয়াত পিতার এমন স্মৃতিকে বুকে ধারণ করে সন্তান আমেরিকান প্রবাসী জয় নেহাল তার মানবিক ইউনিটের উদ্যোগে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার হাটশ হরিপুর, মিরপুরসহ জেলার বিভিন্ন জয়াগায় নিজ অথ্যায়নে সাধারণ মানুষের সুপেয় পানির চাহিদা পুরণ করতে গভীর নলকুপ স্থাপন কর্মসুচী অব্যাহত রেখেছেন।
গতকাল রবিবার এই কর্মসুচীর ধারাবাহিকতায় হাটশ হরিপুর বোয়ালদহ মেছোপাড়া মোড়ে গতকাল সকালে গভীর নলকূপ স্থাপন করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বায়তুল জান্নাত মাদ্রাসার মহতামিম মমিনুল ইসলাম মমিন, প্রবাসী মোহাম্মদ আজিজুর রহমান ও স্থানীয় এলাকাবাসী। কর্মসুচীটি সার্বিক পরিচালনা করেন জয় নেহাল মানবিক ইউনিটের মুখপাত্র সেলিম মাহমুদ। এ ব্যাপারে জয় নেহাল মানবিক ইউনিটের চেয়ারম্যান রাকিব নেহাল মুঠোফোনে এ প্রতিবেদককে জানান, বিদেশে অনেকে থাকেন এখনও আছেন। আমরা অনেকে অর্থ, বিত্ত উপার্জন করি। কিন্তু নিজের অস্তিত্ব নিজের দেশ, পিতা-মাতা, আত্মীয়স্বজন। আমরা দুই ভাই বুদ্ধি হওয়ার পর থেকে দেখেছি আমাদের পিতা কত পরিশ্রম, কত কষ্ট করে অর্থ উপার্জন করেছেন। আমাদের সবুজ পাসপোর্টের মাধ্যমে আজ আমেরিকায় প্রতিষ্টিত করে গেছেন। কিন্তু পিতাকে কতটুকো দিতে পেরেছি একমাত্র মহান রাব্বুল আলামিনই জানেন। আমার পিতা যখন আমেরিকায় অসুস্থ্যতায় চিকিৎসাধীন ছিলেন। তখন প্রায় ৭২ ঘন্টা মুখে কিছুই গ্রহন করেননি। তার পর আমাদের হাতের কয়েক ফোটা পানি পান করেন। সে সময়ে আমরা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হয়েছিলাম। আমাদের দেশের গ্রামের অসহায় মানুষের জন্য সুপেয় পানির ব্যবস্থা করবো। পিতার আত্মার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা রেখে এ কর্মসুচী অব্যাহত রেখেছি। তিনি জানান, কুষ্টিয়াবাসীর সহযোগীতা পেলে আগামীতে আরও মানবিক কর্মসুচী গ্রহন করবো। এ জন্য আপনাদের সকলের দোয়া ও সহযোগীতা কামনা করছি।

 

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Kushtiarkagoj
Design By Rubel Ahammed Nannu : 01711011640