1. nannunews7@gmail.com : admin :
May 27, 2024, 12:52 am
শিরোনাম :
উপকূলে ঘূর্ণিঝড়রিমালেরআঘাত আলমডাঙ্গায় ঘূর্ণিঝড় রিমালের প্রভাবে ঝোড়ো হওয়ার সঙ্গে বৃষ্টি, খোলা হয়েছে কন্ট্রোল রুম আলমডাঙ্গার বাঁশবাড়িয়া গ্রামে ঈদগাহ পূণনির্মাণ নিয়ে দুগ্রুপে চরম বিরোধ বাড়ি ঘর ভাঙচুর আলমডাঙ্গায় মিথ্যা অভিযোগ তুলে সংবাদ সম্মেলন করার প্রতিবাদে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন কুষ্টিয়ার মিরপুরের ভেদামারীতে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে সংঘর্ষে-আহত-১০ কাঙ্খিত সেবা নেই, তবুও ইবির পরিবহন খাতে বছরে বিপুল ব্যয় ! মিরপুরে হাতের রগ কাটা কৃষি ব্যাংক কর্মচারীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার কুমারখালীতে নির্বাচনী সহিংসতায় আহত জয়নাবাদের তারিকের অবশেষে মৃত্ব্য হত্যাকান্ডঘটিয়েছে চেয়ারম্যান এনামুল হক মঞ্জুঃ আব্দুল মান্নান খান কুষ্টিয়ায় স্বাক্ষর জালিয়াতি কান্ডে সেই প্রতারক মীর সামিউল’র জামিন না মঞ্জুর, একদিনের রিমান্ড মিষ্টি আলু চাষ কৌশল

ইবিতে ছাত্রলীগের হট্টগোল, ভোগান্তিতে শিক্ষার্থীরা

  • প্রকাশিত সময় Sunday, July 24, 2022
  • 62 বার পড়া হয়েছে

কাগজ প্রতিবেদক ॥ তখন মধ্যরাত, ঘুমিয়ে আছেন হলের শিক্ষার্থীরা। হঠাৎ হট্টগোলে ঘুম ভেঙে যায় হলে অবস্থানরত আবাসিক শিক্ষার্থীদের। একজনের সাথে অন্যজনের তুমুল কথা-কাটাকাটি, এরই জের ধরে মারামারি। ঘটনাটি ঘটেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) লালন শাহ হলে। শিক্ষার্থী উঠানোকে কেন্দ্র করে মধ্যরাতে দফায় দফায় মারামারি ও হট্টগোল হয়। শনিবার রাতে ১১ টার দিকে ৪০৩ নং কক্ষের একটি সিটকে কেন্দ্র করে এ ঘটনা ঘটে। জানা যায়, লালন শাহ হলের ওই কক্ষে থাকেন চারজন শিক্ষার্থী। যারমধ্যে দুই সিনিয়র শিক্ষার্থী বেশির ভাগ সময়ই ক্যাম্পাসে থাকেন না। এজন্য ওই সিটে ছাত্রলীগ নেতা মোস্তাফিজুর রহমান ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের নবীন এক শিক্ষার্থীকে তুলতে চান। অন্যদিকে সেই সিটে অতিথি হিসেবে দুজনকে রেখেছেন কক্ষে থাকা আরেক ছাত্রলীগকর্মী অর্থনীতি বিভাগের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী শাকিল। শনিবার রাত ১১টার দিকে মোস্তাফিজ ওই কক্ষে গিয়ে অতিথি হিসেবে থাকা শিক্ষার্থীদের সিট খালি করে দিতে বলেন। এতে শাকিল বাঁধা দিলে কক্ষের সামনে তাদের মাঝে কথাকাটা শুরু হয়। বিষয়টি একপর্যায়ে সমঝোতা হয়ে গেলেও পরবর্তীতে আবার গভীর রাতে বেশ কয়েকবার মারামারি ও হট্টগোলের ঘটনা ঘটে। শাকিলের অভিযোগ, রাতে হলের করিডরে বন্ধুদের সাথে বসে থাকা অবস্থায় মোস্তাফিজ এসে তাকে হুমকি-ধমকি দেন। একপর্যায়ে মোস্তাফিজের সাথে ছাত্রলীগকর্মী ইসতিয়াক আহমেদ শাওন, মিরাজুল ইসলাম, আশিক, রাসেল ও রাফি মিলে শাকিলকে এলোপাতাড়ি চড়-থাপ্পড় মারতে থাকে বলে অভিযোগ উঠে। পরে লালন শাহ হল ও অন্যান্য হল থেকে আসা শাকিলের বন্ধুরা এসে ক্ষুব্ধ হয়ে মোস্তাফিজকে খুঁজতে থাকে। এ সময় ওই হল ও অন্য হল থেকে আসা ছাত্রলীগের সিনিয়ররা পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়। ভোর সাড়ে ৪টার দিকে ছাত্রলীগ নেতা বিপুল হোসেন খান ও আলামিন জোয়ার্দার এসে দিনের বেলা বিষয়টি নিয়ে বসার কথা বললে পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত হয়। এদিকে, এমন ঘটনায় ভোগান্তিতে পড়ে হলে অবস্থানরত সাধারণ শিক্ষার্থীরা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষার্থী বলেন, প্রথমে ১১ টার দিকে ঝামেলা হয়। পরে বিষয়টির সমঝোতা হয়ে গেলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আমরা ঘুমিয়ে যায়। পরে মাঝরাতে হট্টগোলের শব্দে আবারো ঘুম ভেঙে যায়। তারপর থেকে সারারাত চিৎকার চেচামেচিতে হলের কেউ ঘুমাতে পারেনি, বসে থেকেই রাত কেটে যায় সবার। আবাসিক হলের আরেক শিক্ষার্থী জানান, আমার সকালে পরীক্ষা ছিল। কিন্তু রাতভর এমন ঝামেলার কারণে পড়াশোনা করতে পারিনি। বারবার হলের মধ্যে এমন চেচামেচিতে রাতে ঘুমাতেও পারিনি। চোখ ব্যথা করছে, মেজাজ ভালো নেই, এ অবস্থায় কিভাবে পরীক্ষা দেবো জানিনা। এরপর ঘটনাস্থলে আসেন সহকারী প্রক্টর শফিকুল ইসলাম, মুর্শিদ আলম, শাহাবুব আলম ও শরিফুল ইসলাম জুয়েল। শাকিল তাদের নিকট অভিযোগ করলে তারা জানান, দিনে হল প্রভোস্ট, প্রক্টরিয়াল বডি ও উভয় পক্ষকে নিয়ে বসে সমাধানের আশ্বাস দেন। পরে রবিবার (২৪ জুলাই) দুপুরে প্রক্টরিয়াল বডি উভয় পক্ষকে নিয়ে বসে বিষয়টি সমাধান করা হয়েছে। এ বিষয়ে ছাত্রলীগ নেতা মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ওই কক্ষে মোট চারটা সিট রয়েছে। দুইজন শিক্ষার্থী বৈধ তবে তারা বেশিরভাগ সময় বাহিরে অবস্থান করে। আর বাকিরা অবৈধভাবে থাকে। এজন্য গণরুম থেকে একজনকে ওই সিটে তুলতে চেয়েছিলাম। তবে শাকিল বাঁধা দেয়। একপর্যায়ে বাগবিতণ্ডা হয়েছে। এ বিষয়ে শাকিল বলেন, আমাদের কক্ষে চারটি সিট রয়েছে যার সবগুলো বৈধ। কিন্তু আমার কক্ষের দুইজন বড়ভাই ক্যাম্পাসের বাইরে থাকায় আমি সেখানে অন্য দুইজনকে উঠায়। তাদেরও হলে বৈধ সিট রয়েছে। কিন্তু মোস্তাফিজ ভাই হঠাৎ করেই রাতে এসে তাদের দুইজনকে নেমে যেতে বলেন। আমি বাঁধা দিলে আমাকেও হল থেকে নেমে যাওয়ার হুমকি দেন। হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. ওবাইদুল ইসলাম জানান, আমরা এই বিষয়টি নিয়ে বসেছিলাম সমাধান ও হয়েছে। এখন আপাতত সবগ্রুপকে মিলিয়ে দিয়ে পরিবেশ ঠান্ডা রাখার চেষ্টা করেছি। তাদের উভয়ের বক্তব্য গুলো শুনেছি। যেখানে যা ক্রটি আছে তা সমাধানের চেষ্টা করা হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Kushtiarkagoj
Design By Rubel Ahammed Nannu : 01711011640