1. nannunews7@gmail.com : admin :
May 19, 2024, 1:42 pm

পানি কমলেও নানা সংকটে বানভাসি মানুষ

  • প্রকাশিত সময় Monday, June 27, 2022
  • 46 বার পড়া হয়েছে

সিলেটে বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হয়েছে; তবে দুর্গত এলাকায় বিশুদ্ধ খাবার পানি, খাবারের সংকটে ভুগছেন বানভাসি মানুষ।
সুরমা নদীর পানি রোববার পর্যন্ত সিলেট পয়েন্টে বিপৎসীমার নিচে নেমেছে। তবে কুশিয়ারা নদীর পানি এখনও বিপৎসীমার উপরে; এবং তা কমছে ধীর গতিতে।
ওসামানীনগর, দক্ষিণ সুরমা, ফেঞ্চুগঞ্জ, জকিগঞ্জ, গোলাপগঞ্জ, বিয়ানীবাজার ও বালাগঞ্জ উপজেলায় বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত রয়েছে। উন্নতি হয়েছে গোয়াইনঘাট, কোম্পানীগঞ্জ, জৈন্তাপুর, সদর, কানাইঘাট উপজেলার বন্যা পরিস্থিতির।
সিলেট পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আসিফ আহমদ জানান, রোববার সন্ধ্যা ৬টায় সুরমা নদীর পানি সিলেট পয়েন্টে বিপৎসীমার ১১ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। কানাইঘাট পয়েন্টে বিপৎসীমার উপরে থাকলেও ২৪ ঘণ্টায় পানি কমেছে ১২ সেন্টিমিটার।
“এদিকে কুশিয়ারা নদীর পানিও কিছুটা কমেছে। তবে কুশিয়ারা অববাহিকায় পানি ধীর গতিতে নামছে। ফলে বন্যা পরিস্থিতির তেমন উন্নতি বলা যাচ্ছে না।“
এদিকে সোমবার পানি উন্নয়ন বোর্ডের বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের তথ্যে বলা হয়েছে, আগামী ২৪ ঘণ্টায় দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের সিলেট, সুনামগঞ্জ, নেত্রকোণা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও কিশোরগঞ্জ জেলার বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি অব্যাহত থাকবে।
সুরমা নদীর পানি কানাইঘাট পয়েন্টে এখনও বিপৎসীমার ৭২ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।
গত ১৫ জুন থেকে সিলেটে বন্যা দেখা দেয়। দুদিন পর থেকে তা ভয়ংকর রূপ নেয়। শতাব্দীর ভয়াবহ বন্যায় জেলার ১৩ উপজেলা ও মহানগরীর একাংশ কবলিত হয়। এখন নগরীর বেশিরভাগ এলাকা থেকেই পানি নেমে গেছে।
সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলার আশিক উদ্দিন বলেন, “পানি এক জায়াগায় থমকে আছে। বাড়ছেও না, কমছেও না। এক সপ্তাহের বেশি সময় ধরে ঘরের ভেতর পানি। এভাবে আর কতদিন আশ্রয়কেন্দ্রে থাকা যায়?”
ওসমানীনগর উপজেলার বল্লবপুর গ্রামের আব্দুল আজিম বলেন, “কুশিয়ারার পানি বাড়ায় পুরো এলাকা বন্যায় প্লাবিত। পানি সহজে কমছে না, খাবার মিলছে না। জীবন অসহায় হয়ে পড়েছে।”
কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) লুসিকান্ত হাজং বলেন, “পানি ধীর গতিতে কমছে। পানি দ্রুত না কমায় বানভাসি মানুষের দুর্ভোগ বাড়ছে। পুরোপুরি পানি না নামায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের পুনর্বাসনেও উদ্যোগ নেওয়া যাচ্ছে না।”

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Kushtiarkagoj
Design By Rubel Ahammed Nannu : 01711011640