1. nannunews7@gmail.com : admin :
June 15, 2024, 4:56 pm

কুষ্টিয়ায় করোনায় মৃত্ব্য ১৮০ ॥ ভারী হচ্ছে স্বজনের আহাজারি  

  • প্রকাশিত সময় Friday, June 25, 2021
  • 86 বার পড়া হয়েছে

 

কাগজ প্রতিবেদক ॥ কুষ্টিয়ায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘন্টায় আরও ৭ জনের মৃত্ব্য হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মৃতের সংখ্যা ১৮০ জন। আক্রান্ত ৯ হাজার ছুঁই ছুঁই। কুষ্টিয়া ২শ ৫০ শর্য্যা হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ১২২ জন এবং ৬টি উপজেলায় আরও ২৫ জনসহ মোট ১৪৭ জন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি রয়েছেন। হাসপাতালের করিডোরে স্বজনদের আহাজারিতে ভারী হচ্ছে পরিবেশ।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সুত্রে জানা গেছে, এ পর্যন্ত কুষ্টিয়ায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে ১৮০ জন মৃত্ব্যবরণ করেছেন। এবং ২শ ৫০ শর্য্যার হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ১২২ জন এবং বিভিন্ন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আরও ২৫ জন ভর্তি রয়েছেন। সুত্রটি জানান, এখন পর্যন্ত জেলায় ১ হাজার ২৮২ জন হোম আইসোলেশনে আছেন। বর্হিদেশ থেকে আগতদের জন্য পিটিআই রোডে সমবায় ট্রেনিং সেন্টার, পিটিআই ও বটতৈল যুব উন্নয়নের প্রশিক্ষণ কেন্দ্রটি রেডি করে রাখা হয়েছে। আক্রান্তের হার সম্পর্কে তিনি জানান, গত এক সপ্তাহে ৩৬.৩৭.৩৮ ও ৪০ ভাগে উন্নীত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

গত কয়েকদিন হাসপাতালে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা কম থাকলেও গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুর সংখ্যা আবারও বেড়ে গেছে। একইসঙ্গে হাসপাতালে রোগী ভর্তির চাপও বাড়ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় নতুন করে ১৩৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। ৪৫২টি নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ৩১ দশমিক ৫৯ শতাংশ। নতুন শনাক্তের মধ্যে কুষ্টিয়া সদরে ১৯ জন, দৌলতপুরে ২০ জন, কুমারখালীতে ২৯ জন, ভেড়ামারায় ১২ জন, মিরপুরে ৩৪ জন ও খোকসায় ১৬ জন। কুষ্টিয়ায় সক্রিয় করোনা রোগীর সংখ্যা ১ হাজার ৪৭৭। এদের মধ্যে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ১৫৭ জন এবং হোম আইসোলেশনে আছেন ১ হাজার ৩২০ জন। এদিকে করোনা সংক্রমণ কমাতে ২০ জুন রাত ১২টা থেকে কুষ্টিয়ায় লকডাউন শুরু হয়েছে। ২৭ জুন রাত ১২টা পর্যন্ত এ লকডাউন চলবে। অপরদিকে কুষ্টিয়া পৌর বাজারকে দুই ভাগে ভাগ করা হয়েছে। তার মধ্যে পাবলিক লাইব্রেরী মাঠে মাছ, মাংস, মুরগী, কিছু মসলা জাতীয় পণ্যোর জন্য নির্ধারণ করা হয়েছে আর অপরদিকে ইসলামীয়া কলেজ মাঠটিকে কাঁচা বাজারের জন্য নির্ধারণ করা হয়েছে। বড় বাজারকেও দু ভাগে ভাগ করা হয়েছে এর মধ্যে আলিয়ামাদ্রাসা মাঠে কাচা বাাজর এবং বড় বাজারের ভেতরেই মাছ, মাংস রাখা হয়েছে বলে জানা গেছে। হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে ছাত্রলীগের একটি টিম সার্বক্ষণিকভাবে রোগীদের সেবা দিয়ে আসছে। খাদ্য, ওষুধ, সহায়তাসহ সাধ্যমত সব ধরণের সেবা প্রদানে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ হাফিজ চ্যালেঞ্জ’র নেতৃত্বে ছাত্রলীগের ওই টিমটি গত কয়েক সপ্তাহ ধরে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। তার পরও অনেক রোগী নিজেই হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে ওষুধ ও খাবার কিনতে বেরিয়ে পড়ছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Kushtiarkagoj
Design By Rubel Ahammed Nannu : 01711011640