1. nannunews7@gmail.com : admin :
April 24, 2024, 9:57 am

জি-৭ এর পর এবার চীনকে মোকাবেলার ডাক নেটোর

  • প্রকাশিত সময় Tuesday, June 15, 2021
  • 115 বার পড়া হয়েছে

সদ্যই শেষ হওয়া জি-৭ সম্মেলনের দেশগুলো চীনের প্রভাব ঠেকাতে একাট্টা হওয়ার পর এবার সামরিক জোট নেটোর সদস্য রাষ্ট্রগুলোকে চীনের উত্থান মোকাবেলা করার ডাক দিয়েছেন নেটো মহাসচিব ইয়েন্স স্টলটেনবার্গ। বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে সোমবার নেটো সম্মেলন শুরুর প্রাক্কালে এ আহ্বান জানান তিনি। এই সম্মেলনে নেটো নেতারা চীনকে নিরাপত্তায় হুমকি হিসাবে চিহ্নিত করে একটি বিবৃতি প্রকাশ করবেন বলে মনে করা হচ্ছে। বিবিসি জানায়, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন দেশের দায়িত্ব নেওয়ার পর এই প্রথম নেটো সম্মেলনে যোগ দিতে চলেছেন। জোটের জন্য এই সম্মেলন খুবই ‘গুরুত্বপূর্ণ একটি মুহূর্ত’ বলে বর্ণনা করেছেন মহাসচিব স্টলটেনবার্গ। বাইডেনের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জ্যাক সুলিভান বলেছেন, নেটো সম্মেলনের আলোচনায় প্রাধান্য পাবে সামগ্রিক নিরাপত্তা, চীনকে মোকাবেলা এবং চীনের দ্রুত সামরিক উত্থানের রাশ টেনে ধরার বিষয়টি। ওদিকে, সম্মেলনের আগে নেটো সদরদপ্তরে মহাসচিব স্টলটেনবার্গ সাংবাদিকদের বলেন, “আমরা নতুন কোনও স্নায়ুযুদ্ধে পদার্পন করছি না, চীন আমাদের প্রতিপক্ষ নয়, শত্রুও নয়। কিন্তু চীনের বিষয়টি একসঙ্গে বসে আলোচনা করা প্রয়োজন। কারণ, চীনের উত্থান আমাদের নিরাপত্তার জন্য, এই জোটের জন্য চ্যালেঞ্জ হয়ে আছে।” চীন বর্তমানে বিশ্বের সামনের সারির অর্থনৈতিক এবং সামরিক শক্তির দেশ। দেশটির কমিউনিস্ট পার্টির কড়া নিয়ন্ত্রণ রয়েছে দেশের মানুষের দৈনন্দিন জীবন, সমাজ এবং রাজনীতির ওপর। নেটো জোট চীনের বাড়তে থাকা সামরিক সক্ষমতা নিয়ে উত্তোরত্তোর উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ছে। চীনের এই শক্তিমত্তাকে নেটো তাদের সদস্যরাষ্ট্রগুলোর গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ এবং নিরাপত্তায় হুমকি হিসাবেই দেখছে। সম্প্রতি কয়েকবছরে আফ্রিকায় চীনের সামরিক ঘাঁটি গাড়ার মতো কর্মকা- এবং রাশিয়ার সঙ্গে চীনের যৌথ সামরিক মহড়া নিয়ে উদ্বিগ্ন নেটো জোট।
সোমবার মহাসচিব স্টলটেনবার্গ বলেন, চীন অর্থনীতি, সামরিক এবং প্রযুক্তিগত দিক দিয়ে নেটোর সমকক্ষ হয়ে উঠছে। যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনও একই কথার প্রতিধ্বনি করে বলেছেন, চীনের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করা প্রয়োজন। এর আগে বিশ্বের শীর্ষ সাত ধনী দেশের জোট জি-৭ চীনের বাড়তে থাকা প্রভাব মোকাবেলায় উন্নয়নশীল দেশগুলোর জন্য অবকাঠামো সহায়তা পরিকল্পনা ঘোষণা করেছে। গত শনিবার চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিন পিংয়ের লক্ষ-কোটি ডলারের ‘বেল্ট অ্যান্ড রোড’ উদ্যোগের জবাবে এই বিশাল পরিকল্পনা ঘোষণা করা হয়।
যুক্তরাজ্যে কারবিস বে-র অবকাশযাপন কেন্দ্রে একত্রিত হয়ে বিশ্বের ধনী গণতন্ত্রের দেশগুলো- যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ইতালি, ফ্রান্স, জার্মানি, ক্যানাডা ও জাপান- বিশ্বকে এটাই দেখাতে চেয়েছে যে, চীনের ক্রমবর্ধমান প্রভাবের বিকল্প প্রস্তাব তারা দিতে পারে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Kushtiarkagoj
Design By Rubel Ahammed Nannu : 01711011640