1. nannunews7@gmail.com : admin :
June 15, 2024, 5:02 pm

ছবি ও ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল ॥ নার্সের পরিবর্তে করোনা টিকা পুশ করলেন এমপি ও উপজেলা চেয়ারম্যান

  • প্রকাশিত সময় Sunday, February 7, 2021
  • 194 বার পড়া হয়েছে

 

কাগজ প্রতিবেদক কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলায় নার্সদের পরিবর্তে স্থানীয় সংসদ সদস্য উপজেলা চেয়ারম্যান টিকা দেওয়ায় হইচই পড়ে গেছে। নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছবিও ভাইরাল হয়েছে। রোববার সকালে কুমারখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রশিক্ষিত নার্স পাশে দাঁড়িয়ে থাকলেও চারজনের শরীরে করোনার টিকা দিয়েছেন কুষ্টিয়া (কুমারখালীখোকসা) আসনের সংসদ সদস্য সেলিম আলতাফ জর্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল মান্নান খান। প্রশিক্ষিত নার্সের বদলে একজন জনপ্রতিনিধিদের টিকা দেওয়ার বিষয়কে খুবই ভয়ানক বলে দাবি করেছেন চিকিৎসা সংশ্লিষ্ট কয়েকজন। সিভিল সার্জন অফিসের কয়েকজন জানান, দক্ষ নার্স, চিকিৎসক বা চিকিৎসা সংশ্লিষ্ট অনুমোদিত ব্যক্তি ছাড়া কেউ এটা পুশ করতে পারেন না। জানা গেছে, বেলা ১১টার দিকে কুমারখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কেন্দ্রে ওই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সিনিয়র নার্স তাসলিমা আক্তারকে নিজ হাতে করোনা টিকা দিয়ে কর্মসূচির উদ্বোধন করেন স্থানীয় এমপি সেলিম আলতাফ জর্জ। সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক নার্স স্বেচ্ছাসেবকরা উপস্থিত ছিলেন। পরে সিরিঞ্জ হাতে নিয়ে তিনজনের শরীরে টিকা দেন উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল মান্নান খান। নার্স চিকিৎসকরা তাকে সহায়তা করেন। এমপি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের টিকা দেওয়ার ছবি ভিডিও ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে। ৫৩ সেকেন্ডের একটি ভিডিওতে টিকা পুশ করতে দেখা যায়। বিষয়ে জানতে চাইলে কুষ্টিয়ার সিভিল সার্জন এইচএম আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, এটা কোনোভাবেই তারা করতে পারেন না। করোনা টিকা দেওয়ার জন্য নার্সদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। তারাই টিকা প্রদান করতে পারেন। অন্য কারো টিকা দেওয়ার প্রশ্নই আসে না। এটা হয়ে থাকলে ঠিক হয়নি। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান যে তিনজনের শরীরে করোনার টিকা পুশ করেছেন তারা হলেনকুমারখালী উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলী, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মী মোখলেছুর রহমান স্থানীয় সাংবাদিক কেএমআর শাহীন। টিকা দেওয়ার সময় সেখানে উপজেলা স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আকুল উদ্দিনও উপস্থিত ছিলেন। তবে তিনি নিষেধ করেননি। ব্যাপারে কুমারখালী উপজেলা স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আকুল উদ্দিন বলেন, ‘চেয়ারম্যান (আবদুল মান্নান খান) সিরিঞ্জ হাতে ধরে ছিলেন, পুশ করেননি। ভিডিওতে স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে যে তিনি টিকা পুশ করছেন এমন কথা বলার পর তিনি বলেন, ঘটনার সময় তিনি ওই কক্ষের বাইরে ছিলেন। বিষয়টি তাঁর জানা নেই। বক্তব্য জানার জন্য আবদুল মান্নান খানের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে সেটি বন্ধ পাওয়া যায়। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের কাছ থেকে টিকা নেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলী বলেন, ‘আমি ভয় পাচ্ছিলাম। অন্যদিকে তাকিয়ে ছিলাম। পরে শুনেছি উপজেলা চেয়ারম্যান টিকা পুশ করেছেন। চেয়ারম্যান না দিয়ে নার্স দিলেই ভালো হতো।কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের এক চিকিৎসক নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, সঠিকভাবে টিকা দেওয়া না হলে মাংশপেশির চারপাশে প্রদাহ দেখা দিতে পারে। ব্যাপারে মুঠোফোনে ব্যারিষ্টার সেলিম আলতাফ জর্জ জানান, আমি কাউকে কোন টিকা দেয়নি। দিতে পারি না। একজন পেশাদার নার্স টিকা দিচ্ছিলেন আমি শুধু সেটি হাত দিয়ে ধরেছি মাত্র। আর ছবি উঠেছে। ভিডিও এবং ছবিতে টিকা পুশ করার দেখা যাচ্ছে, এমন প্রশ্নের জবাবে এমপি ব্যারিষ্টার সেলিম আলতাফ জর্জ বলেন, আপনি ছবি ভিডিওটি ভালো করে দেখেন। সেখানে আমি পুশ করছি। এমন কিছু নেই। ভিডিওটি আমার কাছেও আছে। আপনি ভালো করে দেখেন। তিনি আরও বলেনটিকা দেয়া একজন পেশাদার নার্স কাজ। সেই পেশাদার কাজটি আমি করবো এমন দায়িত্বশীল ব্যক্তি আমি নই।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Kushtiarkagoj
Design By Rubel Ahammed Nannu : 01711011640