1. nannunews7@gmail.com : admin :
April 21, 2024, 4:28 am
শিরোনাম :
গানবাজনা ও গাজীর গান বর্জনের নির্দেশনা দিলেন পাটিকাবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান কোটি টাকা আত্মসাতে কুষ্টিয়া শহর  সমাজ সেবা অফিসার জহিরুল ইসলামের সাজা বদলি কুষ্টিয়াসহ দক্ষিণাঞ্চলে হাহাকার স্তর নেমে যাওয়ায় শুস্ক মৌসুমে পানি শুন্য কুষ্টিয়া কুষ্টিয়ার মিরপুরে অস্ত্রসহ আটক ভেড়ামারায় আবারও অগ্নিকান্ডে পুড়ে ছাই হলো ৫০ বিঘা পানের বরজ জেলা পরিষদের শূন্য হওয়া সদস্য পদে নির্বাচন করবেন আওয়ামী লীগ নেতা পান্না বিশ্বাস টানা চারদিন দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা চুয়াডাঙ্গায়, হিট এলার্ট জারি পাহাড়ে সম্ভাবনাময় কফি-কাজুবাদাম চাষে সরকারি প্রকল্প একীভূত হতে যাওয়া পাঁচ দুর্বল ব্যাংকের খেলাপি ঋণ ২৫ হাজার কোটি টাকা উপজেলা নির্বাচনের সময় আওয়ামী লীগের সম্মেলন ও কমিটি গঠন বন্ধ থাকবে : ওবায়দুল কাদের

মিলেছে কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে আলোচিত মীম হত্যার আলামত

  • প্রকাশিত সময় Saturday, January 30, 2021
  • 371 বার পড়া হয়েছে

 

কাগজ প্রতিবেদক ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে আলোচিত স্বামী ও শাশুড়ির নির্যাতনে গৃহবধূ তাসমীম আলম মীম হত্যা মামলার চারমাসেও আসামীরা পুলিশের ধরা ছোঁয়ার বাইরে। মীম হত্যার তদন্ত রিপোর্টে হত্যার আলামত মিললেও আসামীদের গ্রেফতার করা সম্ভব হচ্ছে না। এ মামলার প্রধান আসামী গৃহবধূ মীমের স্বামী বাপ্পি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে সরব অথচ পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে আসামীরা আত্ম গোপনে। এতে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন নিহত  মীমের পরিবার। পরিবারের ভাষ্য, এ মামলার দুই আসামী স্বামী ও শাশুড়ি তাদের ধরতে পুলিশ গড়িমসি করছে। নিহত মীমের মা তাজমা খাতুন বলেন, দিন গুনতে গুনতে মেয়ে হত্যার চার মাসেও আসামীরা পুলিশের ধরা ছোঁয়ার বাইরে। প্রথম থেকেই বলে আসছি আমার মেয়েকে ওরা হত্যা করেছে। তদন্ত রিপোর্টে হত্যার আলামত মিলেছে। অথচ পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে আসামীরা আত্ম গোপনে। এ মামলার চারমাস পেরিয়ে গেছে। এ মামলার প্রথম দিকেই পুলিশ মামলা নিতে গড়িমসি করেছিল বলে তিনি অভিযোগ করেন। তিনি জানান আদৌও মামলার তদন্ত হবে কি না এতে সন্দেহ রয়েছে। তবে এই জীবনে আমি কিছুই চাই না। আমার মেয়ে হত্যার বিচার চাই। নিহত মীমের পিতা মহিবুল আলম বলেন,সন্তান হত্যার বিচার হবে কি না তাও জানিনা। বলতেই পারি অবহেলায় চলছে এ মামলার কাজ। মেয়েটা আমাদের খুবই আদরের ছিল। সন্তান হারানোর বেদনা আসলে কেউ বুঝলো না। চোখের জলই এখন আমার পরিবার সম্বল। উল্লেখ্য,বিয়ের পর থেকেই স্বামী বাপ্পি ও শাশুড়ি কোহিনুর মোটরসাইকেল যৌতুক দিতে হবে বলে দাবি করতে থাকেন। এতে গৃহবধূ মীমকে উঠতে-বসতে নানান ধরনের কথা শুনান। এই নিয়ে গত ২০২০ সালের সেপ্টেম্বর স্বামী ও শাশুড়ির নির্যাতনে গুরুত্বর আহত হলে স্থানীয়রা উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসকের পরামর্শে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৫ সেপ্টেম্বর সকালে মারা যান গৃহবধূ মীম। মীমের মৃত্যুর পর তার মরদেহ নিয়ে বিচারের দাবিতে তখন কুষ্টিয়াসহ সারাদেশে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ হয়েছিলো। এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই অরুনের সঙ্গে মুঠোই ফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলে তিনি কলটি রিসিভ করেননি। দৌলতপুর থানার (ওসি) জহুরুল আলম বলেন,আসামীরা আত্ম গোপনে রয়েছে। নিহতের পরিবারের অভিযোগ সঠিক নয়। এ মামলার আসামীদের গ্রেফতার করতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে। কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, এ মামলার আসামিদের অবশ্যই আইনের আওতায় আনা হবে। তাদের গ্রেফতার করতে পুলিশ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। কুষ্টিয়ার মানবাধিকার কর্মী সৈয়দা হাবিবা এ ঘটনাকে সভ্য সমাজের কলঙ্ক বলে দাবি করে বলেন,কি হয়েছিল মীমের সঙ্গে এটা তার পরিবারের যেমন জানার দরকার। তেমনই ভাবে আমরা যারা তার হত্যার বিচারের দাবিতে মানববন্ধনে দাঁড়িয়ে ছিলাম তাদেরসহ রাষ্ট্রের মানুষের জানার দরকার কি ঘটেছিল মীমের সঙ্গে। আর কত মীম যৌতুকের জন্য জীবন দিবে। দ্রুত হত্যাকান্ডের সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতারের দাবি জানাচ্ছি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Kushtiarkagoj
Design By Rubel Ahammed Nannu : 01711011640